প্রতিবেশী ভারতে নির্বাচনী প্রচারণা এখন তুঙ্গে। সেই সাথে তুঙ্গে ভুয়া খবর তৈরির প্রতিযোগিতাও। এ নিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়াতে প্রকাশিত একটি কলামের অনুবাদ আজ থাকছে আপনাদের জন্য। কলাম বলতে ঠিক কলাম নয়, মূলত একটি সাক্ষাৎকার, এবং অতি অবশ্যই... ... ... ভুয়া! চলুন, সাক্ষাৎকারটা পড়ে ফেলি



জাগ সুরাইয়া, টাইমস অব ইন্ডিয়া:
নির্বাচনপূর্ব প্রচারণা সর্বোচ্চ গতিতে চলছে, ফলে আরেক বিশেষ উৎপাদন শিল্পেও নব-উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়েছে, সে শিল্পটি হলো: মিথ্যা সংবাদ তৈরিকরণ। ভুয়া খবরের চাহিদা এখন এতোটাই বৃদ্ধি পেয়েছে যে ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব মেনেজমেন্টের মতো একটা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছে, সেটার নাম: ইঞ্জিনিয়াস ইনস্টিটিউট অব মিসইনফর্ম্যাশন, এ প্রতিষ্ঠানের কাজ হলো শিক্ষার্থীদেরকে ভুয়া খবর তৈরি করার প্রশিক্ষণ দেওয়া।
জুগুলার ভেইন (কলামের নাম অনুবাদক) এ ইনস্টিটিউটের ডিন ডক্টর নকল বাজের সাক্ষাৎকার নিতে গিয়েছিলো। ডক্টর নকল বাজ তার নিজস্ব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেক বুক  প্রতিষ্ঠা করেছেন, যেটি প্রতিদিন ৩০,৭১৩,৫৬৮ বার ভিজিট হয়ে থাকে।

জুগুলার ভেইন:  ড. নকল বাজ, আমাকে বলুন, আপনি কীভাবে জনসাধারণকে আশ্বস্ত করেন যে আপনার তৈরি ভুয়া খবরটি আসলে সঠিক খবর?
ড. নকল বাজ: খুবই সহজ। আপনি সংবাদের শুরুতে লিখে দেবেন ‘উচ্চ পর্যায়ের সরকারি সূত্র অনুসারে’।

জু.ভে:  উচ্চ পর্যায়ের সরকারি সূত্রকে দিয়ে আপনি কীভাবে আপনার খবরটি সত্যায়িত করেন?
ড. নকল:  সহজ বিষয়। আপনি একটা বড় মই নিয়ে সেটার উপর সরকারি ক্যান্টিনের চা-বালককে আরোহণ করিয়ে তাকে কিছু ঘোষ-টোস দিয়ে আপনি যে ভুয়া খবরটি ছড়াতে চাচ্ছেন, সেটি তাকে দিয়ে বলিয়ে নিন। ব্যস, আপনার খবরটি ‘উচ্চ পর্যায়ের সরকারি সূত্র’ কর্তৃক সত্যায়িত হয়ে গেলো।

জু.ভে.:  বাহ্! আর কিছু?
ড. নকল:  হ্যাঁ। আপনি সবসময়ই বলতে পারেন ‘নির্ভরযোগ্য সূত্র অনুসারে’। তারপর আপনি এমন একজনকে খোঁজে নিন, মিথ্যা বলা যার অভ্যাস, এবং সবসময় যিনি মিথ্যা বলার ব্যাপারে সবসময়ই নির্ভরযোগ্য, তিনিই আপনার নির্ভরযোগ্য (reliable) সূত্র অথবা বলতে পারেন ‘re-lie-ableসূত্র, মানে পুনঃমিথ্যার উপযুক্ত সূত্র আরকি।

জু.ভে.:   চমৎকার। মিথ্যা খবরকে সত্য বানানোর আর কোন উপায় আছে?
ড. নকল:  অবশ্যই আছে। আপনি আপনার খবরে বিশেষণ জুড়ে দিতে পারেনি ‘একজন বিশেষজ্ঞের মতে’, তবে তিনি কোন বিষয়ের বিশেষজ্ঞ সেটা উল্লেখ করার দরকার নাই। আমি সাধারণত আমার দাদিমাকে আমার ভুয়া খবরের উৎস বানাই। তিনি সবচেয়ে ভালো সুজির হালুয়া তৈরি বিশেষজ্ঞ এমন হালুয়া বানাতে পারেন, খাইলে বুঝবেন!

জু.ভে:  সুন্দর। কিন্তু এখন যে আপনি কীভাবে ভুয়া খবরকে আসল খবর বানান, সেটা ফাঁস করে দিলেন, আপনার কি ভয় হয় না যে আমি সবকিছু সবাইকে জানিয়ে দেব?
ড. নকল:  যা খুশি করুন। আমি বলবো যে আপনি আমার সম্পর্কে যা লিখছেন সব ভুয়া, এবং আমার দাবি প্রমাণের জন্য আমি আমার দাদিমার কাছে ফিরে যাব ...


সতর্কীকরণ: এটি শুধুমাত্র পাঠকদের একটু হাসানোর জন্য লেখা। কোন বাস্তব ঘটনা বা চরিত্রের সাথে এর কোন ধরণের সাদৃশ্য পাওয়া গেলে তা সম্পূর্ণ কাকতালীয়!
________________________________

সাক্ষাৎকারটি টাইমস অব ইন্ডিয়ায় “Lets fake it: How to turn nakli news into asli news in three simple steps 😜শিরোনামে প্রকাশিত।